মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

এক নজরে মুলাদী

সাধারণ তথ্যাদি

জেলা বরিশাল
উপজেলা মুলাদী
সীমানা উত্তরে কালকিনি ওগোসাইরহাটউপজেলা, পূর্বে হিজলা ওমেহেনিগঞ্জ উপজেলা, দক্ষিণে সদর উপজেলা এবং পশ্চিমে বাবুগঞ্জ উপজেলা।
জেলা সদর হতে দূরত্ব ৩৫ কি:মি:
আয়তন  ২৩৫.৫ বর্গ কিলোমিটার
জনসংখ্যা ১,৭৪,৭৭৫ জন (আদমশুমারী-২০১১ অনুযায়ী)
 পুরুষ৮২,৫৪৫ জন
 মহিলা৯২,২৩০ জন
লোক সংখ্যার ঘনত্ব ৭৫৮.২৪ (প্রতি বর্গ কিলোমিটারে)
মোট ভোটার সংখ্যা ১,২৩,২৩৭ জন
 পুরুষভোটার সংখ্যা৬১,৩৬৭ জন
 মহিলা ভোটার সংখ্যা৬১,৮৭০ জন
বাৎসরিক জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ১.৩০%
মোট পরিবার(খানা) ৩৮৩৯৪ টি
নির্বাচনী এলাকা বরিশাল৩-(মুলাদী-বাবুগঞ্জ)
গ্রাম ১১০টি
মৌজা ৯৮ টি
ইউনিয়ন ০৭ টি
পৌরসভা ০১ টি
   
এতিমখানা ১৭ টি
মসজিদ ৫৫০ টি
মন্দির ১৫ টি
নদ-নদী ৩টি (আড়িয়ালখা,জয়ন্তী,নয়ভাঙণী ন)
হাট-বাজার ৩২ টি
ব্যাংক শাখা ০৮ টি
পোস্ট অফিস/সাব পোঃ অফিস ২৪ টি
টেলিফোন এক্সচেঞ্জ ০১ টি
   
   

 

কৃষি সংক্রান্ত
মোট জমির পরিমাণ ৫৬,৯৩৪ একর
নীট ফসলী জমি ৩৭,৮০০ একর
মোট ফসলী জমি ৮১,৩১০ একর
এক ফসলী জমি ৬৫৮০ একর
দুই ফসলী জমি ২২৬২০ একর
তিন ফসলী জমি ৮৬০০ একর
গভীর নলকূপ ৬৮৩ টি
অ-গভীর নলকূপ ৩,৯২৩ টি
শক্তি চালিত পাম্প ২০৫ টি ( হিসাব-২০১৩)
ব্লক সংখ্যা ১৭ টি
বাৎসরিক খাদ্য চাহিদা ৩১,১০৫ মেঃ টন
   

 

শিক্ষা সংক্রান্ত
সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৩২ টি
বে-সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ০২ টি
   
জুনিয়র উচ্চ বিদ্যালয় ০৬ টি
উচ্চ বিদ্যালয়(সহশিক্ষা ২৯ টি
উচ্চ বিদ্যালয়(বালিকা) ২ টি
দাখিল মাদ্রাসা ১২ টি
আলিম মাদ্রাসা ৩টি
ফাজিল মাদ্রাসা ০৪ টি
   
কলেজ(সহপাঠ) ০৮ টি
কলেজ(বালিকা) ০১ টি
শিক্ষার হার ৫৬%
 পুরুষ৫৬.১%
 মহিলা৫৫.৯%

 

স্বাস্থ্য সংক্রান্ত
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ০১ টি
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র ১৬ টি
বেডের সংখ্যা ৫০ টি
ডাক্তারের মঞ্জুরীকৃত পদ সংখ্যা ৩৭ টি
কর্মরত ডাক্তারের সংখ্যা ইউএইচসি ১৭, ইউনিয়ন পর্যায়ে ১৬, ইউএইচএফপিও ১টি মোট= ৩৪ টি
সিনিয়র নার্স সংখ্যা ১৫ জন। কর্মরত=১৩ জন
সহকারী নার্স সংখ্যা ০১ জন

 

ভূমি ও রাজস্ব সংক্রান্ত
মৌজা ৮৫ টি
ইউনিয়ন ভূমি অফিস ০৬ টি
পৌর ভূমি অফিস ০০ টি
মোট খাস জমি ২০০৬.৭৮ একর
কৃষি ২০০২.০৮ একর
অকৃষি ০৪.৭০ একর
বন্দোবস্তযোগ্য কৃষি ১৪.৭১ একর (কৃষি)
বাৎসরিক ভূমি উন্নয়ন কর(দাবী) 

সাধারণ=৩৮,৬০,২৮০/-
সংস্থা = ১,৮৮,০৪,৭৪৭/-

বাৎসরিক ভূমি উন্নয়ন কর(আদায়) 

সাধারণ=২৭,৩১২/- জুলাই মাসে আদায়
সংস্থা = জুলাই মাসে আদায় নেই

হাট-বাজারের সংখ্যা ৩২ টি

 

যোগাযোগ সংক্রান্ত
পাকা রাস্তা ৫৩.০০ কিঃমিঃ
অর্ধ পাকা রাস্তা ৫৯.০০ কিঃমিঃ
কাঁচা রাস্তা ৫৭০ কিঃমিঃ
ব্রীজ/কালভার্টের সংখ্যা ৪৬৬ টি
নদীর সংখ্যা ০৩ টি

 

পরিবার পরিকল্পনা
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র ১১ টি
পরিবার পরিকল্পনা ক্লিনিক ০১ টি
এম.সি.এইচ. ইউনিট ০১ টি
সক্ষম দম্পতির সংখ্যা ৮৪,৮৩৩ জন

 

মৎস্য সংক্রান্ত
পুকুরের সংখ্যা ৪,০৭৮ টি (৪১২ একর)
মৎস্য বীজ উৎপাদন খামার সরকারী ০১ টি
মৎস্য বীজ উৎপাদন খামার বে-সরকারী ০৬ টি
বাৎসরিক মৎস্য চাহিদা ৬,১৮০ মেঃ টন
বাৎসরিক মৎস্য উৎপাদন ৫,৫১৩ মেঃ টন

 

প্রাণি সম্পদ
উপজেলা পশু চিকিৎসা কেন্দ্র ০১ টি
পশু ডাক্তারের সংখ্যা ০২ জন
কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র ০১ টি
পয়েন্টের সংখ্যা ০৩ টি
উন্নত মুরগীর খামারের সংখ্যা ১১ টি

লেয়ার ৮০০ মুরগীর উর্ধ্বে· ১০-৪৯ টি মুরগী আছে, এরূপ খামার

 অসংখ্য
গবাদির পশুর খামার ২২ টি
ব্রয়লার মুরগীর খামার ৯৬ টি

 

সমবায় সংক্রান্ত
কেন্দ্রিয় সমবায় সমিতি লিঃ ০১ টি
মুক্তিযোদ্ধা সমবায় সমিতি লিঃ ০২ টি
ইউনিয়ন বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ ১৫ টি
বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ ১০৯ টি
মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি লিঃ ৩৭ টি
যুব সমবায় সমিতি লিঃ ১১ টি
আশ্রয়ন/আবাসন বহুমুখী সমবায় সমিতি ০৫ টি
কৃষক সমবায় সমিতি লিঃ ১২০ টি
পুরুষ বিত্তহীন সমবায় সমিতি লিঃ ০৬ টি
মহিলা বিত্তহীন সমবায় সমিতি লিঃ ০৭ টি
ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিঃ ০২ টি
অন্যান্য সমবায় সমিতি লিঃ ০৫ টি
চালক সমবায় সমিতি ৩ টি

বি:দ্র: বিস্তারিত তথ্য সমূহ নিচে দেয়া হলো:

মুলাদী উপজেলা


  • মুলাদী উপজেলা (বরিশাল জেলা)  আয়তন: ২৬১.০২ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২২°৪৭´ থেকে ২৩°০৩´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯০°১৭´ থেকে ৯০°২৭´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে গোসাঁইরহাট উপজেলা, দক্ষিণে বরিশাল সদর উপজেলা, পূর্বে হিজলা ও মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা, পশ্চিমে কালকিনি, গৌরনদী ও বাবুগঞ্জ উপজেলা।

    জনসংখ্যা ১৮৩২৮৩; পুরুষ ৯২০৮৪, মহিলা ৯১১৯৯। মুসলিম ১৭৯৭৯১, হিন্দু ৩৪৭৯ এবং অন্যান্য ১৩।

    জলাশয় নয়া ভাঙ্গনী, আড়িয়াল খাঁ ও খালিয়ার নদী উল্লেখযোগ্য।

    প্রশাসন মুলাদী থানা গঠিত হয় ১৮৯৯ সালে এবং থানাকে উপজেলায় রূপান্তর করা হয় ২৪ মার্চ ১৯৮৩ সালে।

    উপজেলা
    পৌরসভাইউনিয়নমৌজাগ্রামজনসংখ্যাঘনত্ব(প্রতি বর্গ কিমি)শিক্ষার হার (%)
    শহরগ্রামশহরগ্রাম
    ৯৮১১০১০৮০০১৭২৪৮৩৭৩৭৬১.১৪৮.২

     

    উপজেলা শহর
    আয়তন (বর্গ কিমি)মৌজালোকসংখ্যাঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি)শিক্ষার হার (%)
    ৭.১১১০৮০০১৫১৯৬১.০৬
    ইউনিয়ন
    ইউনিয়নের নাম ও জিও কোডআয়তন (একর)লোকসংখ্যাশিক্ষার হার (%)
    পুরুষমহিলা
    কাজীর চর ৪৭১৫৩৯২১০৯১১১০৩৯৩৫২.৯৮
    গাছুয়া ৩৫৭১১৮১১৬৮৫১১৯০৯৪৮.০১
    চর কালেখাঁন ২৩৫১৯৩১০১৫৭১০১৮৯৪৪.৯১
    নাজিরপুর ৭১৮৯৬৭১১৭৬৮১১৩৮৩৪৮.৮৯
    বাটামারা ১১৭৪৭১১২২৬৬১২২৯৭৪৬.৮৪
    মুলাদী ৫৯১০১৩১১৭৪৩১১৬৫০৫৫৭.১৫
    সফিপুর ৮৩১০১৮৬১৭৮৬৬১৮৫২৩৪২.৯৯

    সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

    প্রাচীন নিদর্শনাদি ও প্রত্নসম্পদ গাছা মিয়াবাড়ীর মসজিদ, সৈয়দেরগাঁও গ্রামের প্রাচীন মসজিদ, গঙ্গাপুর গ্রামের সুলতান খার মসজিদ।

    ঐতিহাসিক ঘটনাবলি  মুলাদী উপজেলা এক সময় ছিল ঢাকা-জামালপুর রাজস্ব জেলার অন্তর্গত। ১৮৭৩ সাল পর্যন্ত এ জেলায় একটি মাত্র মধ্যস্বত্ব ছিল এবং ১৯০৮ সাল নাগাদ এ অঞ্চলে অনেকগুলো মধ্যস্বত্ব সৃষ্টি হয়। এর মধ্যে তালুকদার ও হাওলাদার শ্রেণীই ছিল সবচেয়ে প্রভাবশালী মধ্যস্বত্ব। ১৯৫১ সালে জমিদারি উচ্ছেদ হলে মুলাদী থানায় একজন রাজস্ব সার্কেল অফিসার নিযুক্ত হয়। ১৯০৫ সালের বঙ্গ-ভঙ্গ আন্দোলন, খেলাফত আন্দোলন এবং বায়ান্নের ভাষা আন্দোলনে মুলাদী উপজেলার অধিবাসীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে মুলাদিতে পাকসেনারা নদীর দুই পাশ দিয়ে মর্টার ও মেশিনগানের গুলিতে ৪২ জন নিরীহ লোককে হত্যা করে। মুক্তিযোদ্ধারা নন্দীল বাজারে পাকবাহিনীর গানবোট ডুবিয়ে দেওয়ায় সেখানে তারা ব্যাপক হত্যাকান্ড চালায়। কালীগঞ্জ এলাকায় সপ্তাহব্যাপী পাকবাহিনী ধ্বংসযজ্ঞ চালায়।

    মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন খাসেরহাটে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধি।

    ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান  মসজিদ ৪৪০, মন্দির ১৮, গির্জা ১, মাযার ২। উল্লেখযোগ্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান: কাজীবাড়ি জামে মসজিদ, আইনউদ্দিন ফকিরের মাযার, জাহেনদ্দি ফকিরের মাযার।

    MuladiUpazila.jpg

    শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড় হার ৪৯.০%; পুরুষ ৫০.৯%, মহিলা ৪৭.১%। কলেজ ৫, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৩৫, প্রাথমিক বিদ্যালয় ১২৭, কিন্ডার গার্টেন ১, মাদ্রাসা ১৭। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: মুলাদী কলেজ, কাজীর চর কলেজ, কাজীর চর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মুলাদী জি এম বালিকা বিদ্যালয়, ভেদুরিয়ারচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (১৮৯২), তয়ক-টমচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (১৮৪৫), গাছুয়া পরপদ্মা সিনিয়র মাদ্রাসা।

    সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান লাইব্রেরি ১, সিনেমা হল ১, নাট্যদল ২, থিয়েটার সংগঠন ১, খেলার মাঠ ১০, ক্লাব ১৮।

    জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ৬৪.৮%, অকৃষি শ্রমিক ৩.০১%, শিল্প ০.৮৪%, ব্যবসা ১০.৬৬%, পরিবহণ ১.০৩%, চাকরি ১০.১০%, ধর্মীয় সেবা ০.৩২%, নির্মাণ ১.৩৮%, রেন্ট ও রেমিটেন্স ২.০৭% এবং অন্যান্য ৫.৭৮%।

    কৃষিভূমির মালিকানা ভূমিমালিক ৭৭.৬৭%, ভূমিহীন ২২.৩৩%। শহরে ৫৩.৬৯% এবং গ্রামে ৭৯.১৯% পরিবারের কৃষিজমি রয়েছে।

    প্রধান কৃষি ফসল ধান, গম, ডাল, পান, শাকসবজি।

    বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি পাট, অড়হর, চীনা, তামাক, সরিষা, কাউন, চীনাবাদাম, রসুন, আখ।

    প্রধান ফল-ফলাদিব আম, কাঁঠাল, কলা, লিচু, জাম, তাল, সুপারি, নারিকেল, আমড়া, পেঁপে, লেবু।

    মৎস্য, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির খামার মৎস্য ৫০, গবাদিপশু ৭, হাঁস-মুরগি ২৭।

    যোগাযোগ বিশেষত্ব পাকারাস্তা ২২ কিমি, আধা-পাকারাস্তা ১৫ কিমি, কাঁচারাস্তা ১৫০ কিমি; নৌপথ ৬৫ নটিক্যাল মাইল।

    শিল্প ও কলকারখানা রাইসমিল ২৫, স’মিল ৪০, চিড়াকল ১, ডালকল ২, আটাকল ১, আইস ফ্যাক্টরি ৫, ওয়েল্ডিং কারখানা ১৬।

    কুটিরশিল্প স্বর্ণশিল্প ৫, তাঁতশিল্প ৭, মৃৎশিল্প ৯০, সূচিশিল্প ১৮২, বাঁশের কাজ ৬৫, কাঠের কাজ ২১২।

    হাটবাজার ও মেলা হাটবাজার ৩৪, মেলা ৫। মুলাদী বন্দর হাট ও খাসের হাট এবং কাজীর চর আদম আলী ফকিরের মেলা, মুনসি বাড়ির মেলা ও জালালপুরের মেলা উল্লেখযোগ্য।

    প্রধান রপ্তানিদ্রব্য   পান, সুপারি, ডাল, ধান, আমড়া।

    বিদ্যুৎ ব্যবহার এ উপজেলার সবক’টি ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পল্লিবিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন। তবে ২৩.৩৬% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

    পানীয়জলের উৎস নলকূপ ৯১.৩৬%, পুকুর ৩.৯৭%, ট্যাপ ০.৬৪% এবং অন্যান্য ৪.০২%।

    স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ উপজেলায় ৫৮.২৩% (গ্রামে ৫৬.৬৪% এবং শহরে ৮৩.৩৩%) পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ৩৩.৯০% (গ্রামে ৩৫.২৩% এবং শহরে ১২.৭৪%) পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। তবে ৭.৮৭% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নেই।

    স্বাস্থ্যকেন্দ্র উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ১, পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র ৭, উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র ৩।

    প্রাকৃতিক দুর্যোগ ১৯৬১ ও ১৯৬৫ সালের ঘূর্ণিঝড়ে এ উপজেলার নদী তীরবর্তী অঞ্চল প্লাবিত হয় এবং আমন ধান ও পানের বরজের ব্যাপক ক্ষতি হয়।

    এনজিও ব্র্যাক, আশা, প্রশিকা, দিশা, আরডিও।  [মো. মিজানুর রহমান]

    তথ্যসূত্র   আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো; মুলাদী উপজেলা সাংস্কৃতিক সমীক্ষা প্রতিবেদন ২০০৭।